প্রচ্ছদ >> সারাদেশ

ট্রেনের আগাম টিকেট ২৬ জুলাই

ঢাকা রিপোর্ট প্রতিবেদক:

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঘরমুখী যাত্রীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে বাংলাদেশ রেলওয়ে ব্যাপক প্রস্ততি গ্রহণ করেছে। এসময়ে ৫ জোড়া বিশেষ ট্রেন, ঈদের দিন শোলাকিয়া এক্সপ্রেস ট্রেন চালানো ছাড়াও আন্তঃনগর, মেইল ও এক্সপ্রেস ট্রেনে অতিরিক্ত কোচ সংযোজন করা হবে। আগামী ২৬ জুলাই থেকে যাত্রীদের কাছে অগ্রিম টিকেট বিক্রি করা হবে।
বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্র জানায়, পবিত্র ঈদ উপলক্ষে রেলওয়ের পাহাড়তলী ও সৈয়দপুর ওয়ার্কশপ থেকে মোট ১৩৫টি কোচ মেরামত করে বিভিন্ন ট্রেনে সংযোজন করা হবে। এর মধ্যে পাহাড়তলী ওয়ার্কশপ থেকে ৮০টি এবং সৈয়দপুর ওয়ার্কশপ থেকে ৮০টি কোচ মেরামত করা হচ্ছে।
পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যাত্রী সাধারণের ভ্রমণের সুবিধার্থে আন্তঃনগর ট্রেনসমূহের কোন অফ ডে থাকবে না। ঈদের ৫ দিন আগে আন্তঃনগর ও স্পেশাল ট্রেনের টিকেট ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে কর্মকর্তাদের তত্ত্বাবধানে এবং ঈদ পরবর্তী সময়ে কর্মস্থলমুখী বা ফেরত যাত্রীদের ভ্রমনের সুবিধার্থে পশ্চিমাঞ্চলের রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট স্টেশন থেকে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় অগ্রিম টিকেট বিক্রি করা হবে।
ঈদ উপলক্ষে বাংলাদেশ রেলওয়ে যাত্রীবাহী ও স্পেশাল ট্রেন পরিচালনার সুবিধার্থে পূর্বাঞ্চলে ১০৭টি, পাকশীতে ৫৫টি ও লালমনিরহাটে ২৫টি ইঞ্জিন সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে। এ লক্ষ্যে ঈদের তিনদিন পূর্ব থেকে পূর্বাঞ্চলে কন্টেইনার এক্সপ্রেস ছাড়া কোন মালবর্তী ট্রেন চলাচল করবে না।
অগ্রিম টিকেট বিক্রির সময় টিকেট কালোবাজারী প্রতিরোধে বাংলাদেশ রেলওয়ে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। ঈদের সময় ঢাকা স্টেশনের চারিদিকে এক বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে গোয়েন্দা তৎপরতার মাধ্যমে টিকেট কালোবাজারী বন্ধের পদপে নেয়া হয়েছে। কালোবাজারী রোধে পুলিশ ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত থাকবে।
এছাড়া ঈদের আগে ৩দিন ও ঈদের পরে ৫দিন ঢাকা, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, বিমানবন্দর, জয়দেবপুর, সিলেট, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও খুলনাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনে পরিস্থিতি মোকাবেলার প্রয়োজনে সিনিয়র কর্মকর্তা নিয়োগ করা হবে।

এই বিভাগের সর্বশেষ আপডেট